Wednesday , March 28 2018
Home / রুপচর্চা / মাত্র ১ টি কাজে সকালে পান উজ্জ্বল ত্বক

মাত্র ১ টি কাজে সকালে পান উজ্জ্বল ত্বক

সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে মলিন ত্বক নিশ্চয়ই কেউ দেখতে চান না। বিশেষ করে যদি কোনো বিশেষ অনুষ্ঠান বা কাজ থাকে সেদিন কেউই ত্বকের সমস্যা এবং মুখ কালচে হয়ে থাকুক তা পছন্দ করেন না। কিন্তু অযত্ন অবহেলার দরুন ত্বকের স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা হারিয়ে যাওয়া খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। তাই যদি সকালে স্নিগ্ধ, কোমল ও উজ্জ্বল ত্বক পেতে চান তাহলে রাতেই আপনাকে একটু বাড়তি যত্ন নিতে হবে। তবে খুব বেশী কষ্ট করতে হবে না। রাতে খুব সহজ মাত্র একটি মাস্ক ব্যবহার করলেই সকালে পেতে পারেন উজ্জ্বল কোমল স্নিগ্ধ ত্বক যা আপনার সৌন্দর্য বাড়িয়ে দেবে বহুগুনে।

যা যা লাগবে

  • ১ চা চামচ টমেটোর রস
  • ১ চা চামচ মধু

খুব অবাক লাগলেও মাত্র ২ টি উপকরণে তৈরি এই মাস্কটির কার্যক্ষমতা সত্যিই অবাক করবে আপনাকে।

পদ্ধতি ও ব্যবহারবিধি

– প্রথমে টমেটো কেটে ব্লেন্ডারে ভালো করে ব্লেন্ড করে চিপে ছেঁকে রস বের করে নিন। তবে অবশ্যই ব্লেন্ডার পরিষ্কার আছে কিনা তা ভালো করে নিশ্চিত করে নেবেন।

– এরপর এই টমেটোর রসের সাথে মধু ভালো করে মিশিয়ে নিন যেনো খুব মসৃণ মিশ্রণ তৈরি হয়।

– মুখ ভালো করে ফেসওয়াস দিয়ে পরিষ্কার করে স্ক্রাব করে ত্বক পরিষ্কার করে নিন।

– এরপর পরিষ্কার ত্বকে মাস্কটি সমানভাবে ব্রাশ বা হাতের আঙুল দিয়ে লাগিয়ে নিন।

– কিছুক্ষন ভালো করে ত্বকে ম্যাসাজ করুন মাস্কটি।

– এরপর এভাবেই ত্বকে লাগিয়ে রাখুন পুরো রাত। ঘুমানোর সময় বালিশের উপরে একটি তোয়ালে জড়িয়ে নিন নতুবা কভারে মাস্কটি লেগে যেতে পারে।

– সকালে উঠে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। ত্বকের উজ্জ্বলতা ও কোমলতা নিজেই টের পাবেন।

– এই মাস্কটি সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করতে পারেন।

কার্যকারণঃ

– টমেটো ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে বিশেষভাবে কার্যকরী একটি উপাদান। টমেটোর রস ত্বকের কালচে ভাব দূর করে ত্বকের হারানো উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনতে সহায়তা করে।

– মধু প্রাকৃতিক ময়েসচারাইজার হিসেবে কাজ করে। এতে করে ত্বক নরম ও কোমল হয়। এছাড়াও মধুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বকের নানা সমস্যা দূর করতে বিশেষভাবে সহায়ক।

– মাস্কটি পুরো মুখে ম্যাসাজ করার ফলে ত্বকের নিচের রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায় যা ত্বকের সুস্থতা নিশ্চিত করে এবং ত্বককে ভেতর থেকে দীপ্তিময় করে তুলতে সাহায্য করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *