Wednesday , March 28 2018
Home / বিনোদন / ৭ টি সিনেমায় নগ্ন অভিনয় করলেন যে নাইকা ………দেখুন ভিডিও সহ

৭ টি সিনেমায় নগ্ন অভিনয় করলেন যে নাইকা ………দেখুন ভিডিও সহ

বিস্তারিত দেখুন …………

লাইটস, ক্যামেরা, অ্যাকশন। আর তারপরই মিলনে লিপ্ত ছবির নায়ক-নায়িকা। না, পর্নোগ্রাফির
কথা হচ্ছে না। সিনেমা হলে অথবা টিভির পর্দায় যে ছবিগুলি দর্শকরা দেখে থাকেন, তেমনই বেশ কিছু ছবিতে সত্যিই যৌনমিলন ঘটিয়েছেন ছবির কলাকুশলীরা। কথার কথা নয়। এ তথ্য এক্কেবারে সত্যি। সাধারণত অন্তরঙ্গ দৃশ্যে মিলনের অভিনয়ই করে থাকেন অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। কিন্তু বিশ্ব জুড়ে এমন অনেক ছবি আছে যেখানে ক্যামেরার সামনে সত্যিকারের রতিসুখে লিপ্ত হতে হয়েছে তাঁদের। শুধু হলিউড নয়, টলিপাড়ার ছবিও রয়েছে সেই তালিকায়। এই প্রতিবেদনে রইল তেমনই সাতটি ছবির নাম।
 
সংস (Songs)
২০০৪ সালের এই ব্রিটিশ রোম্যান্টিক ছবিতে নায়ক-নায়িকার ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের দৃশ্য সাড়া ফেলে দিয়েছিল। শুধু মুখমেহনই নয়, ছবির নায়ক-নায়িকা বাস্তবেই ক্যামেরার সামনে মিলন ঘটিয়েছিলেন।
 
লাভ (Love)
২০১৫ সালে মুক্তি পেয়েছিল এই ফরাসি ছবিটি। যেখানে একাধিকবার সেক্সের দৃশ্য দেখা গিয়েছে। তার উপর ছবিটি ছিল 3D। ফলে বড়পর্দায় রীতিমতো জীবন্ত হয়ে উঠেছিল সেসব যৌন দৃশ্য। যা চেটেপুটে উপভোগ করেছিলেন সিনেপ্রেমীরা।
 
নিমফোম্যানিয়াক (Nymphomaniac)
এই ছবিতে আবার নগ্নতা ও যৌনতাকে তুলে ধরেছিলেন নায়িকার ডামি। নায়িকা নিজে মিলনের দৃশ্যে ছিলেন না। তাই সে সব দৃশ্যে তাঁর শরীরকেই পর্দায় দেখানো হয়েছিল। ২০১৩ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবির এক-একটি দৃশ্য দেখলে আপনার অ্যাড্রিনানিল ক্ষরণ বাড়তে বাধ্য।
 
অ্যান্টিক্রাইস্ট (Antichrist)
ভূতুড়ে এই ছবিতে যেমন ভয়ে গায়ে কাঁটা দেবে, ঠিক তেমনই এর যৌন দৃশ্য বাড়িয়ে তুলবে শরীরের উষ্ণতা। বিনোদনে ভরপুর এই ছবি ২০০৯ সালে বক্স অফিসে দারুণ ব্যবসা করেছিল।
 
ইন্টিমেসি (Intimacy)
দুই অচেনা মানুষ যাঁরা জড়িয়ে পড়েছিলেন শারীরিক সম্পর্কে। এই হল ছবির গল্প। আর শুধু ক্যামেরার সামনেই নয়, ছবির স্বার্থে অফ ক্যামেরাও একাধিকবার ইন্টিমেট হয়েছিলেন ‘ইন্টিমেসি’র নায়ক-নায়িকা। ক্যামেরার সামনে নিজেদের অভিব্যক্তিকে আরও সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলতেই নাকি এই প্রয়াস।
 
ওয়েটল্যান্ডস (Wetlands)
জার্মান ছবি। জার্মানি ভাষার আসল ছবিটির নাম Feuchtgebiete। এ ছবির যৌনতা দেখলে অবশ্য দর্শকরা নাক সিঁটকোতে পারেন। সবজি দিয়ে হস্তমৈথুন এবং পিজ্জার উপর বীর্জপাতের দৃশ্য বেশ অস্বস্তিকর।
 
গান্ডু (Gandu)
বাঙালি দর্শকরা এ ছবির কথা নিশ্চয়ই শুনে থাকবেন। ছবির মুক্তি নিয়েও অনেক টালবাহানা চলেছিল। মুক্তির পর আবার অনেকে অর্ধেক ছবি দেখেও হল থেকে বেরিয়ে এসেছিলেন। কারণ ছিল সেই একটিই। অতিরিক্ত যৌন দৃশ্য। হ্যাঁ, এ ছবিতে নগ্নতা ছিল ভরপুর। ছিল শরীর গরম করা কিছু যৌন দৃশ্যও।

বিস্তারিত দেখুন …………

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *