Wednesday , March 28 2018
Home / নিউজ আপডেট / স্বামীর নির্যাতন থেকে মুক্তি পেতে দুই সন্তানকে নিয়ে গায়ে আগুন দিলেন মা

স্বামীর নির্যাতন থেকে মুক্তি পেতে দুই সন্তানকে নিয়ে গায়ে আগুন দিলেন মা

অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলেন মহিলা দিনের পর দিন মদ্যপ স্বামীর অত্যাচারে। তাই আত্মহননের পথই বেছে নিলেন নির্যাতন থেকে মুক্তি পেতে। তবে শুধু একা নন, দুই শিশুকন্যাকে নিয়ে ঘরের মধ্যে গায়ে আগুন দিয়ে আত্মঘাতী হলেন মা। মঙ্গলবার রাতে তেহট্ট থানার পূর্ব নওদা পাড়ার নৃশংস এই ঘটনায় এলাকায় নেমেছে শোকের ছায়া।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃতদের নাম সাগরী বিবি(২৬) এবং দুই সন্তান হালিমা খাতুন(৬), সরমিনা খাতুন(৪)। পুলিশ সূত্রে আরও খবর, কিছুদিন হল বাইরের রাজ্য থেকে কাজ করে বাড়ি ফিরেছে স্বামী তুহিন দফাদার। তারপর থেকে প্রতিদিনই মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ঢুকত সে। যার জেরে কয়েকদিন ধরে বাড়িতে অশান্তি লেগেই ছিল। বাড়ি ফিরে স্ত্রীর উপর অমানবিক অত্যাচার চালাত। মঙ্গলবার দুপুরেও একই ঘটনা ঘটে। বেশ খানিকক্ষণ ঝগড়া হয় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে। সাগরী বিবিকে খুব মারধর করে স্বামী। তারপর বেরিয়ে যায়। সন্ধেতেও স্বামী তুহিন দফাদার বাড়িতে ছিল না। আর তার অনুপস্থিতিতেই রাত ন’টা নাগাদ ঘরের মধ্যে চারকোল কেরোসিন দিয়ে আগুন জ্বালান সাগরী বিবি। শুধু নিজের গায়ে নয়, তার দুই শিশুকন্যার গায়েও কেরোসিন ঢালেন। দাউ দাউ করে জ্বলে ওঠে আগুন। বন্ধ জানলা-দরজা পেরিয়ে দুই শিশুকন্যা ও মায়ের অগ্নিদগ্ধ হয়ে আর্তনাদ বাইরে পৌঁছায়। স্থানীয়রা কাতর চিৎকার শুনে ছুটে আসেন। কিন্তু ততক্ষণে সব শেষ। তিনটি প্রাণ আগুনে ঝলসে গিয়েছে।

পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। ঘরের দরজা ভেঙে উদ্ধার করা হয় সাগরী বিবি ও তাঁর দুই সন্তানের মৃতদেহ। এমন ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় গোটা এলাকায়। ভিড় জমে যায় তুহিন দফাদারের বাড়ির সামনে। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, দীর্ঘ অবসাদে ভুগে স্বামীর হাত থেকে মুক্তি পেতে আত্মহত্যাই করেছেন ওই মহিলা। যদিও এর নেপথ্যে অন্য কোনও কারণ আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *